News
সিংড়া উপজেলা
উপজেলার পটভুমি

চলনবিলের মানসকন্যা সিংড়া উপজেলা নাটোর জেলার অন্যতম প্রাচীন থানা। বেশ কিছুদিন পূর্বে চলনবিল তথা সমগ্র সিংড়া উপজেলাই জলমগ্ন থাকত, উপজেলার তিন চতুর্থাংশ সারা বছর জলমগ্ন থাকত। প্রফেসর আব্দুল হামিদ টি, কে রচিত “চলনবিলের ইতিকথা” নামক গ্রন্থ হতে জানা যায় এখানে জলদস্যুদের আস্তানা ছিল।

চলনবিলের বিশাল জলাশয়ে বিভিন্ন প্রজাতির জলজ উদ্ভিদ জন্মাতো, যেমনঃ- শাপলা, পদ্ম, নলখাগড়া ও হোগলা ইত্যাদি। আরেক ধরনের জলজ উদ্ভিদ জন্মাতো যার ফল ত্রিভুজাকৃতির, যা পানিফল নামে পরিচিত। মোঘল বাদশাহ আকবরের রাজত্বের সময় পূর্বাঞ্চল হতে কর আদায়ে চলনবিলের মধ্যদিয়ে নৌযানের 

বাকিটুকু দেখুন

ভৌগলিক পরিচিতি

সিংড়া উপজেলা নাটোর জেলার অন্তর্গত এবং জেলার পশ্চিমাংশে অবস্থিত। এর মোট আয়তন প্রায় ৫২৮.৪৬ বর্গ কিলোমিটার। এ উপজেলার মোট ১২টি ইউনিয়নে ৪৪৯ টি মৌজায় ৪৩৯ টি গ্রাম রয়েছে। উপজেলাটি প্রায় ২৪ ৩০র্ ও ২৪ ৭০র্ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৯ ১০র্ ও ৮৯ ৩০র্ পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত।

 

প্রতিমন্ত্রী কর্নার

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার যে প্রত্যয় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন, তা সফল করতে দেশের পৌরসভাগুলোর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। সিংড়া পৌরসভা বিগত কয়েক বছরে অত্র এলাকার সার্বিক উন্নয়নে যে সকল উদ্যোগ তথা প্রকল্প গ্রহণ করেছে, তা নি:সন্দেহে সর্বজনস্বীকৃত।

বাকিটুকু দেখুন


মেয়র কর্ণার

সম্মানিত পৌরবাসী,

আসসালামু আলাইকুম। গত ৩০ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে অনুষ্ঠিত সিংড়া পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র হিসেবে আমাকে নির্বাচিত করায় আমি আপনাদের নিকট চিরকৃতজ্ঞ। আপনারা জানেন,

বাকিটুকু দেখুন


সিংড়া পৌরসভা
সাম্প্রতিক কার্যক্রম

যানজট নিরসন ও জননিরাপত্তা

সিংড়া একটি ব্যবসা-প্রধান এলাকা হওয়ায় হাটের দিনগুলোতে প্রতিনিয়ত যানজটের সৃষ্টি হতো। এতে জনসাধারণের চরম ভোগান্তির শিকার হতে হতো। যানজট নিরসনকল্পে মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস নিম্নবর্ণিত কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করেন:

বাকিটুকু দেখুন

স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়ন

ইতিমধ্যেই সিংড়া পৌরসভায় সরকারীভাবে শতভাগ স্যানিটেশন কাভারেজ ঘোষণা করা হয়েছে। কাঁচা ল্যাট্রিন নাই বললেই চলে। জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানসমূহে নির্মাণ করা হয়েছে কমিউনিটি পাবলিক টয়লেট। ফলে, যেখানে সেখানে মল-মুত্র ত্যাগের বিষয়টি রোধ করা সম্ভব হয়েছে অনেকটাই।

বাকিটুকু দেখুন

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা

বর্তমান পৌর পরিষদ দায়িত্ব গ্রহণের পর বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে বেহাল অবস্থা পরিলক্ষিত হয়। ময়লা বহনকারী একটি মাত্র গার্বেজ ট্রাক চালু ছিল। বাকী গাড়িসমূহ বিনা সংস্কারে অকেজো অবস্থায় ছিল।সুইপারগণ নিয়মিত ময়লা পরিষ্কার করতো না, কারণ তাদের মধ্যে বেতন নিয়ে অসন্তোষ ছিল। বর্তমান পৌর পরিষদ দায়িত্ব গ্রহণের সাথে সাথে পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি করে তাদের পোশাক দেয়া হয়।

বাকিটুকু দেখুন

দূর্যোগ মোকাবেলা

দূর্যোগ মোকাবেলায় বর্তমান পৌর পরিষদ সারাদেশে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। যে কোন দূর্যোগে জনসাধারণের পাশে থাকা, তাদের সহযোগিতা করা পৌরসভা কর্তব্য। কিন্তু, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পরিবার-পরিজন উপেক্ষা করে জনসাধারণের সেবা করা আজকের দিনে বিড়ল, যা বর্তমান পরিষদের একটি অন্যতম উদাহরণ।

বাকিটুকু দেখুন


সকল নিউজ সমূহ

Title Description Attachment
দূর্যোগ মোকাবেলা

দূর্যোগ মোকাবেলায় বর্তমান পৌর পরিষদ সারাদেশে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। যে কোন দূর্যোগে জনসাধারণের পাশে থাকা, তাদের সহযোগিতা করা পৌরসভা কর্তব্য। কিন্তু, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পরিবার-পরিজন উপেক্ষা করে জনসাধারণের সেবা করা আজকের দিনে বিড়ল, যা বর্তমান পরিষদের একটি অন্যতম উদাহরণ।

বাকিটুকু দেখুন

বিশেষ উদ্যোগের জন্য জাতীয় পুরষ্কার প্রাপ্তি

সিংড়া পৌরসভার বর্তমান পরিষদের সকল কার্য্যক্রম দেশের বিভিন্ন স্তরে প্রশংসিত হয়েছে। দূর্যোগকালীন পরিস্থিতি মোকাবেলা, নতুন অভিনব উদ্যোগ গ্রহণ, উন্নয়ন কাজের গুনগত মাণ নিয়ন্ত্রণ তথা টেকসই উন্নয়নের লক্ষমাত্রা নিশ্চিতকরণে সিংড়া পৌরসভা যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে তা আজ আন্তর্জাতিকভাবেও স্বীকৃত। সোলার সড়কবাতি স্থাপনে ২০১৯ সালে বিভাগীয় পর্যায়ে প্রথম স্থান অধিকার করায় জাতীয়ভাবে পুরষ্কারপ্রাপ্ত হয়।

বাকিটুকু দেখুন

যানজট নিরসন ও জননিরাপত্তা

সিংড়া একটি ব্যবসা-প্রধান এলাকা হওয়ায় হাটের দিনগুলোতে প্রতিনিয়ত যানজটের সৃষ্টি হতো। এতে জনসাধারণের চরম ভোগান্তির শিকার হতে হতো। যানজট নিরসনকল্পে মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস নিম্নবর্ণিত কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করেন:

বাকিটুকু দেখুন

ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন

পৌর এলাকার বেশ কিছু ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য বার্ষিক উন্নয়ন সহায়তা তহবিলের অর্থে এবং এলজিএসপি-৩ এর অর্থায়ণে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এর ভিতর রয়েছে, মজার স্কুল এর শ্রেণীকক্ষ নির্মান, দমদমা পাইলট স্কুল এবং বিজনেজ ম্যানেজমেন্ট স্কুলে বেঞ্চ সরবরাহ, বেশ কয়েকটি মসজিদের ওজুখানা নির্মানসহ আরো অনেক কাজ।

বাকিটুকু দেখুন

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা

বর্তমান পৌর পরিষদ দায়িত্ব গ্রহণের পর বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে বেহাল অবস্থা পরিলক্ষিত হয়। ময়লা বহনকারী একটি মাত্র গার্বেজ ট্রাক চালু ছিল। বাকী গাড়িসমূহ বিনা সংস্কারে অকেজো অবস্থায় ছিল।সুইপারগণ নিয়মিত ময়লা পরিষ্কার করতো না, কারণ তাদের মধ্যে বেতন নিয়ে অসন্তোষ ছিল। বর্তমান পৌর পরিষদ দায়িত্ব গ্রহণের সাথে সাথে পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি করে তাদের পোশাক দেয়া হয়।

বাকিটুকু দেখুন

শহর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ

নদীপ্রধান সিংড়া পৌরসভা প্রতি বছরই বন্যায় প্লাবিত হয়। তাই, সিংড়া পৌরবাসীর প্রাণের দাবী একটি শহর রক্ষা বাঁধ, যা বিগত বছরগুলোতে ছিল চরমভাবে উপেক্ষিত। বর্তমান পৌর পরিষদ দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই চেস্টা করে আসছিল কিভাবে জনসাধারণের এই প্রাণের দাবী পূরণ করা যায়। সে অনুযায়ী, মাননীয় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

বাকিটুকু দেখুন

সিঁড়িঘাট নির্মাণ

বতর্মান পৌর পরিষদ দায়িত্ব গ্রহণের পর বিগত ৫৫ মাসে  আরসিসি সিঁড়িঘাট স্থাপন করা হয়েছে। সিংড়া পৌরসভা নদী ও বিল পরিবেস্টিত, তাই সিঁড়িঘাট সমূহ নির্মাণ করায় একদিকে যেমন জনসাধারণ উপকৃত হয়েছে, অপরদিকে শহরের সৌন্দর্য্যও বৃদ্ধি পেয়েছে। 

বাকিটুকু দেখুন

পৌরসভা পাবলকি ট্রান্সর্পোট ও এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস “চলো”

সিংড়া পৌরসভার বর্তমান পৌর পরিষদের বিশেষ কিছু কর্মকান্ডের মধ্যে এটি একটি অনন্য উদ্যোগ। ২০১৮ সালে জার্মানীর জিআইজেড নামক একটি দাতাসংস্থা কর্তৃক আয়োজিত একটি প্রতিযোগিতায় সিংড়া পৌরসভা অংশগ্রহণ করে এবং সিংড়া পৌরসভায় জরুরী স্বাস্থ্য সেবাসহ এবং একটি নিরাপদ পাবলিক ট্রান্সপোর্ট সার্ভিস চালুর বিষয়ে প্রকল্প প্রস্তাবণা দাখিল করা হয়,

বাকিটুকু দেখুন

সড়ক আলোকিতকরণ

বিগত ৫ বছর পূর্বে সিংড়া পৌরসভার হাতে গোনা কয়েকটি রাস্তা ব্যতিত সকল রাস্তাই ছিল অন্ধকারাচ্ছন্ন। শহরে পর্যাপ্ত সড়কবাতি না থাকায় রাত্রীকালীন জননিরাপত্তা ছিলনা বললেই চলে। মাত্র ২৫৫টি ইলেকট্রিক সড়কবাতি ছিল পুরো পৌর এলাকায়। বর্তমাণ সরকার দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই জননিরাপত্তার উপর বিশেষ দেয়া হয়,

বাকিটুকু দেখুন

পানি সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নয়ন

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতায় সিংড়া পৌরসভায় ২টি নতুন পাম্প হাউজ নির্মান করা হয়েছে, যার একটি শোলাকুড়ায় এবং অপরটি দমদমা প্রাথমিক ‍বিদ্যালয়ের নিকট অবস্থিত। এছাড়া, প্রায় ১০ কিলোমিটার নতুন পাইপ লাইন স্থাপন করা হয়েছে এই সময়কালে।

বাকিটুকু দেখুন